শনিবার, ১৩ জুলাই, ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১

বিবিয়ানায় আরও কূপ খনন করবে শেভরন


Published: 2022-10-03 21:13:56 BdST, Updated: 2024-07-13 06:34:00 BdST


নিজস্ব প্রতিবেদক : দেশীয় গ্যাসের উৎপাদন বাড়াতে এবার বিবিয়ানায় চুক্তিবদ্ধ এলাকার বাইরে আরও ৬০ বর্গকিলোমিটার এলাকা ইজারা দেওয়া হয়েছে শেভরনকে। সেখানে দুটি কূপ খনন করবে কোম্পানিটি। বর্তমানে বিবিয়ানায় শেভরনের কূপ-সংখ্যা ২৬টি। ২০২৩ সালে বি-২৭ উন্নয়ন কূপ খনন শুরু করবে। এরপর বি-২৮ কূপ খননের পরিকল্পনাও রয়েছে শেভরনের। রবিবার (২ অক্টোবর) রাজধানীর একটি হোটেলে দেশের সবচেয়ে বড় গ্যাসক্ষেত্র বিবিয়ানা সম্প্রসারণের অংশ হিসেবে বেশ কয়েকটি চুক্তি সই হয়েছে। দেশীয় গ্যাস উৎপাদন বাড়ানোর উদ্যোগের অংশ হিসেবে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে গণমাধ্যমকে জানায় পেট্রোবাংলা। এ সময় জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগ, পেট্রোবাংলা ও শেভরন বাংলাদেশের মধ্যে ‘সাপ্লিমেন্টাল অ্যাগ্রিমেন্ট টু দ্য ব্লক ১২ প্রোডাকশন শেয়ারিং কন্টাক্ট (পিএসসি) ফর বিবিয়ানা ফ্লাঙ্ক এরিয়া এক্সটেনশন’ এবং পেট্রোবাংলা ও শেভরন বাংলাদেশের মধ্যে ‘অ্যামেন্ডমেন্ট অব জালালাবাদ গ্যাস অ্যান্ড কনডেনসেট পারচেজ অ্যান্ড সেলস অ্যাগ্রিমেন্ট’ এবং ‘অ্যামেন্ডমেন্ট অব মৌলভীবাজার কনডেনসেট পারচেজ অ্যান্ড সেলস অ্যাগ্রিমেন্ট ফর ব্লক ১৩ ও ১৪’ শীর্ষক চুক্তি সই হয়েছে।

অনুষ্ঠানে জ্বালানি বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (উন্নয়ন) ড. মো. হেলাল উদ্দিন, এনডিসি, পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যান নাজমুল আহসান, পেট্রোবাংলার পরিচালক (পিএসসি) প্রকৌশলী মো. শাহীনুর ইসলাম, শেভরন বাংলাদেশেরর প্রেসিডেন্ট এরিক এম ওয়াকার এবং করপোরেট অ্যাফেয়ার্স ডিরেক্টর মুহাম্মদ ইমরুল কবির সরকারসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। জ্বালানি বিভাগের পক্ষে উপসচিব মোর্শেদা ফেরদৌস, পেট্রোবাংলার পক্ষে পেট্রোবাংলার সচিব (ঊর্ধ্বতন মহাব্যবস্থাপক) রুচিরা ইসলাম এবং শেভরনের পক্ষে শেভরন, বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট এরিক এম ওয়াকার চুক্তিতে সই করেন। পেট্রোবাংলা সূত্র জানায়, দেশে এত দিন খাড়াভাবে কূপ খনন করা হলেও এবারই প্রথম আড়াআড়িভাবে গভীর কূপ খনন করা হবে। নতুন এলাকায় কূপের গভীরতা ৮ হাজার মিটার এবং বিদ্যমান এলাকায় তা চার হাজার মিটার পর্যন্ত গভীর হতে পারে। ২০২৩ সালের মার্চের দিকে নতুন কূপ খনন শুরু হবে। পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যান নাজমুল আহসান জানান, এই চুক্তির মূল লক্ষ্য বিবিয়ানায় নতুন কূপ খনন করা। বর্তমানে বিবিয়ানায় শেভরনের কূপ-সংখ্যা ২৬। শেভরন এক্সটেনডেন্ট এরিয়ায় ২০২৩ সালে বি-২৭ উন্নয়ন কূপ খনন শুরু করবে। পরবর্তীতে বি-২৮ ইনফিল্ড কূপ খননের পরিকল্পনাও রয়েছে শেভরনের। আশা করি এখান থেকে উল্লেখযোগ্য পরিমাণ গ্যাস পাওয়া যাবে। উল্লেখ্য, দেশের গ্যাসক্ষেত্রগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি গ্যাস পাওয়া যায় এখন বিবিয়ানা। এখান থেকে প্রতিদিন ১৩০ কোটি থেকে ১৪০ কোটি ঘনফুট গ্যাস উৎপাদিত হয়, যা দেশের বাকি সব গ্যাসক্ষেত্রে উৎপাদিত মোট গ্যাসের অর্ধেকের চেয়েও বেশি।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।