মঙ্গলবার ব্যারিস্টার সালেহউদ্দিনের ৩৯তম মৃত্যুবার্ষিকী


Published: 2022-05-23 18:31:22 BdST, Updated: 2022-06-27 01:48:14 BdST


নিজস্ব প্রতিবেদক: মহান ভাষা আন্দোলনের ভাষাসৈনিক, মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, পাকিস্তান জাতীয় পরিষদ সদস্য, গণপরিষদ সদস্য, জাতীয় সংসদ সদস্য, বাংলাদেশ জাস্টিস পার্টির প্রতিষ্ঠাতা বিশিষ্ট রাজনৈতিক ও প্রখ্যাত পার্লামেন্টারিয়ান মরহুম ব্যারিস্টার সৈয়দ কামরুল ইসলাম মোহাম্মদ সালেহউদ্দিনের ৩৯তম মৃত্যুবার্ষিকী ২৪ মে (মঙ্গলবার)  । ব্যারিস্টার সালেহউদ্দিন ১৯৩৭ সালের ২ জুলাই গোপালগঞ্জে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ১৯৫৩ সালে বরিশালের বিএম ইন্সটিটিউট থেকে ম্যাট্রিক, ১৯৫৬ সালে বাগেরহাট পিসি কলেজ থেকে আইএ , ১৯৫৯ সালে যশোরের মাইকেল মধূসুদন কলেজ থেকে বিএ পাশ করেন করে ১৯৬৩ সালে লন্ডন গমন করে ইনার টেম্পল থেকে ১৯৬৮ সালে ব্যারিস্টারী পাশ করেন। ১৯৬৯ সালে কুইন্স কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়ে ব্রিটিশ হাইকোর্টের কুইন্সবেঞ্চ ডিভিশনে আইন ব্যবসা করেন। তিনি ব্রিটিশ সিভিল সাভির্সের একজন সদস্য ছিলেন সেখানে প্রায় সাড়ে চার বছর ব্রিটিশ সরকারের চাকরী করেন। ছাত্রাবস্থায় বিভিন্ন কলেজে তিনি ভিপি ও জিএস নির্বাচিত হন। ১৯৫২ সালের মহান ভাষা আন্দোলনে অংশগ্রহন করার কারনে বরিশাল থেকে গ্রেফতার হয়ে মাত্র ১৩ বছর বয়সে কারারুদ্ধ হন এবং কারারুদ্ধ অবস্থায় ম্যাট্রিকুলেশন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন। ১৯৫২ সালে বরিশাল টাউন ইয়ূথলীগের সম্পাদক নির্বাচিত হন। তিনি পূর্ব-পাকিস্তান ছাত্র ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় কমিটিতে সক্রিয় ভূমিকা পালন করেন। লন্ডনে অবস্থানকালে প্রবাসী বাঙালী ছাত্র সংগঠন “পাক ইয়ূথ ফেডারেশন” গঠন করেন এবং তার নেতৃত্বে প্রবাসী বাঙালী ছাত্ররা লন্ডনস্থ পাকিস্তান হাইকমিশন ভবন দখল করে অসহযোগ আন্দোলনের উপর জনমত গড়ে তুলেন। আগড়তলা ষড়যন্ত্র মামলায় অভিযুক্ত আসামী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে আইনগত সহায়তা দানের জন্য তার নেতৃত্বে The Right of East Pakistan Defence Front এর উদ্যোগে ব্রিটিশ এমপি ও কুইন্স কাউন্সিলর স্যার টমাস উইলিয়ামকে তৎকালীন পূর্ব-পাকিস্তানে পাঠানোর ব্যবস্থা করেন। বঙ্গবন্ধুর আহ্বানে স্বাধিকার আন্দোলনে যোগদানের জন্য ব্রিটিশ সরকারের লোভনীয় চাকুরী ছেড়ে দেশে ফিরে আসেন এবং ১৯৭০ সালে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী হিসাবে ফরিদপুর-২ থেকে পাকিস্তান জাতীয় পরিষদ সদস্য নির্বাচিত হন। ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠকের ভূমিকা পালন করেন। তিনি বৃহত্তর ফরিদপুর জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে প্রথম স্বাধীণ বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করে এবং ছাত্রজনতার সমন্বয়ে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে গণপ্রতিরোধ গড়ে তুলে বৃহত্তর ফরিদপুর জেলায় মুক্তিযুদ্ধের সূচনা করেন। এছাড়া ১৮ মার্চ ১৯৭১ নিজ এলাকা বোয়ালমারী ডাকবাংলোর সামনে বিশাল জনসমাবেশে জাতীয় পরিষদের নির্বাচিত প্রতিনিধি হিসাবে স্বাধীণ বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করেন। ১৯৭১ সালে মুজিবনগর সরকারের পক্ষে ভারতের কল্যাণীস্থ বিভিন্ন মুক্তিযুদ্ধ ক্যাম্প তত্বাবধান করেন এবং রাজনৈতিক প্রশিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৭২ সালে গণপরিষদ সদস্য হিসাবে বাংলাদেশের সংবিধাণ প্রণয়নে দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করে বাংলাদেশের মূল সংবিধানে স্বাক্ষর প্রদান করেন। ১৯৭৩ সালে প্রথম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে ফরিদপুর-৩ আসন (বর্তমান ফরিদপুর-১) থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে জাতীয় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়ে মজলুম জননেতা মওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানীর ন্যাপে যোগদান করে সংসদে ন্যাপের প্রতিনিধিত্ব করেন। ১৯৭৪ সালে মুসলিম রাষ্ট্রসংস্থা ওআইসি’তে বাংলাদেশকে অন্তঃর্ভূক্তকরণের জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের আগ্রহে মজলুম জননেতা মওলানা আব্দূল হামিদ খান ভাসানী ও ব্যারিস্টার সৈয়দ কামরুল ইসলাম মোহাম্মদ সালেহউদ্দিন বিশেষ ঐতিহাসিক ভূমিকা পালন করেন। তিনি বিদ্যানুরাগী ও সংস্কৃতমণা ছিলেন। ঢাকার বনানীর ঐতিহ্যবাহী ”বনানী বিদ্যানিকেতন” বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠায় তিনি বিশেষ ভূমিকা রাখেন। ১৯৮১ সালে তিনি বাংলাদেশ জাস্টিস পার্টি প্রতিষ্ঠা করেন। অত্যন্ত সৎ, নির্লোভ, নির্ভিক, প্রচার বিমুখ ও সহজ-সরল জীবনযাপনকারী ছিলেন তিনি । ১৯৮৩ সালের ২৪ মে ঢাকার তৎকালীন পিজি হাসপাতালের একটি সাধারণ ওয়ার্ডে ইন্তেকাল করেন। ঢাকার বনানী কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। মরহুমের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বিভিন্ন সামাজিক,সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সংগঠন বিস্তারিত কর্মসূচী গ্রহণ করেছে। সকাল ১০টায় বনানীতে মরহুমের মাজার জিয়ারতের আয়োজন করা হয়েছে। ১৪৮ উত্তর বাসাবো মরহুমের পুত্রের বাসভবনে বাদ-মাগরিব দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে। মরহুমের গ্রামের বাড়ী ফরিদপুর জেলার মধুখালী উপজেলার বনমালিদিয়া মাজার মসজিদে দোয়ার আয়োজন করা হয়েছে। মরহুমের পুত্র প্রস্তাবিত বেঙ্গল ইউনিভার্সিটির চেয়ারম্যান এডভোকেট ড.সৈয়দ জাভেদ মোহাম্মদ সালেহউদ্দিন মরহুমের আত্মার মাগফেরাতের জন্য সকলের দোয়া চেয়েছেন।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।