অর্থ পাচারকারীদের জন্য সাধারণ ক্ষমা গ্রহণযোগ্য নয়: সিপিডি


Published: 2022-06-10 18:35:49 BdST, Updated: 2022-06-27 03:04:25 BdST

নিজস্ব প্রতিবেদক : ২০২২-২৩ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে বিদেশে পাচার হওয়া টাকা বৈধ করার সুযোগ গ্রহনযোগ্য নয় বলে মন্তব্য করেছেন সেন্ট্রার ফর পলিসি ডায়ালগের (সিপিডি) নির্বাহী পরিচালক ড. ফাহমিদা খাতুন। তিনি বলেছেন, এটি কখনই বাস্তবায়নযোগ্য নয়, তার চেয়ে বড় কথা হলো এটা অনৈতিক। শুক্রবার গুলশানের একটি হোটেলে ‘জাতীয় বাজেট ২০২২-২৩ সিপিডির পর্যালোচনা’ শীর্ষক সংবাদ সম্মেলনে ড. ফাহমিদা খাতুন এ সব কথা বলেন। ড. ফাহমিদা খাতুন বলেন, একদিকে অর্থপাচারের সুযোগ দিয়ে আবার অর্থ ফিরিয়ে আনার সুযোগ করে দেব। অন্যদিকে দরিদ্র জনগোষ্ঠীর জন্য করছাড় থাকবে না। সেটা সামাজিক ন্যায়বিচারের জন্য গ্রহণযোগ্য নয়। সিপিডির নির্বাহী পরিচালক বলেন, ২০২২-২৩ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট যে লক্ষ্য নিয়ে প্রণয়ন করা হয়েছে তা পূরণে নেওয়া পদক্ষেপগুলো পরিপূর্ণ নয়। নীতি কৌশলের ক্ষেত্রে পদক্ষেপ অসম্পূর্ণ এবং বিদ্যমান চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় তা অপর্যাপ্ত। ড. ফাহমিদা বলেন, মুদ্রাস্ফীতি ও বৈশ্বিক অর্থনীতির নানা চাপ রয়েছে। চাপ মোকাবিলায় ছয়টি লক্ষ্যের কথা বলেছেন অর্থমন্ত্রী। যার মধ্যে রয়েছে মুদ্রাস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ, অভ্যন্তরীণ বিনিয়োগ বৃদ্ধি, বর্ধিত ভর্তুকির জন্য অর্থায়নের সংস্থান, বৈদেশিক অর্থের ব্যবহার নিশ্চিত করা, টাকার বিনিময় মূল্য স্থিতিশীল রাখা এবং রিজার্ভ সন্তোষজনক রাখা।
সিপিডি নির্বাহী পরিচালক বলেন, ‘আমরা দেখেছি বাজেটে মূল্যস্ফীতি কথাটি অনেকবার এলেও মূল্যস্ফীতি নিয়ে অর্থমন্ত্রীর পদক্ষেপ পর্যাপ্ত নয়। কর কাঠামোতে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যে কর প্রত্যাহারের প্রস্তাবনা যথেষ্ট নয়, অনেক পণ্যেই কর রয়ে গেছে। বাজেটে গম ছাড়া নিত্য প্রয়োজনীয় অনেক পণ্যে করছাড় নেই। মুদ্রাস্ফীতির এই সময়ে করমুক্ত আয়সীমা বৃদ্ধি করা হয়নি, ভর্তুকি ও সামাজিক সুরক্ষার আওতা ওই অর্থে বাড়েনি।সিপিডির সম্মানীয় ফেলো অধ্যাপক মুস্তাফিজুর রহমান বলেন, আমরা দেখেছি বাংলাদেশীদের জন্য এই সুবিধা বহুবার দেওয়া হয়েছে। এখন যারা অর্থ পাচার করেছে তাদেরকে এ সুযোগ দেওয়া হয়েছে।তিনি বলেন, এই সুবিধা নৈতিক, রাজনৈতিক এবং অর্থনৈতিকভাবে অগ্রহণযোগ্য। মুস্তাফিজুর রহমান বলেন, তারা (পাচারকারী) আইন লঙ্ঘন করে দেশ থেকে অবৈধভাবে অর্থ নিয়ে গেছে এবং এখন তাদের টাকা ফেরত আনার সুবিধা দেওয়া হয়েছে। পিকে হালদারের নাম উল্লেখ না করে অধ্যাপক রহমান বলেন, তিনি এখন এই সাধারণ ক্ষমার সুযোগ নিতে পারেন।সিপিডির গবেষণা পরিচালক ড. খন্দকার গোলাম মোয়াজ্জেম এবং সিনিয়র রিসার্চ ফেলো তৌফিকুল ইসলাম খান এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।