শুক্রবার, ১৪ জুন, ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

২৭শে জুলাই বিরোধী দলের নয়া কর্মসূচীবাংলাদেশের নির্বাচনী রাজনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ হয়েছে উঠছে আগস্ট মাস


Published: 2023-07-24 19:10:54 BdST, Updated: 2024-06-14 21:12:31 BdST


কুদরাত-ই-খোদা (ইএনবি)
বাংলাদেশের আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে ক্রমাগত রাজনৈতিক মাঠ উত্তপ্ত হচ্ছে । প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার পদত্যাগের এক দফা দাবিতে অনড় মাঠের বিরোধী দল বিএনপিসহ সমমনা দলগুলো। এরই মধ্যে বিএনপি আগামী ২৭ জুলাই ঢাকায় মহা সমাবেশের ডাক দিয়েছে। তাদের এ আন্দোলনের সাথে যুগপথ কর্মসূচী ঘোষণা করেছে সমমনা দলগুলো। পাশাপাশি ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ শান্তি সমাবেশ সহ বিভিন্ন কর্মসূচী নিয়ে রাজপথ দখলের চেষ্টা করছে ।
রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা মনে করছেন, নির্বাচনের পূর্ব কয়েক মাস উত্তপ্ত থাকবে । এমনকি সাংঘর্ষিক পরিস্থিতিও সৃষ্টি হতে পারে । ক্ষমতাসীন দলের নীতি নির্ধারকরা বলছেন, আমরা সংবিধানের বাইরে এক চুলও নড়বো না । অপরদিকে মাঠের বিরোধী দল সংসদ ভেঙ্গে দিয়ে প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগসহ একটি নির্বাচনকালীন সরকারের কথা বলছেন ।
উল্লেখ্য যে, ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক কর্তৃপক্ষের সুনির্দিষ্ট দুটি চাপ মোকাবেলা করতে হচ্ছে । প্রথমত বহির্বিশ্বের চাপ (আমেরিকা সহ ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন), দ্বিতীয়ত অভন্তরীণ রাজনৈতিক চাপ । অপরদিকে রাজ পথের প্রধান বিরোধী দল বিএনপি প্রায় ১৪ বছর ক্ষমতার বাইরে থাকায় মামলা, গায়েবী মামলা, হামলা এবং অস্তিত্বের সংকট মোকাবেলা করতে হচ্ছে । আগামী নির্বাচন ও বাংলাদেশের তীব্র রাজনৈতিক সংকট নিয়ে দেশে – বিদেশে দৃশ্যপটের বাইরে রাজনৈতিক বৈঠক চলছে।
সূত্র মতে, আমেরিকার ভিসা নীতি ঘোষণার পরে আমেরিকার মিত্র দেশগুলো মার্কিন পলিসিই অনুসরণ করছে । সর্বশেষ ব্রিটিশ হাই কমিশনার আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের সাথে সাক্ষাত করে একটি অবাধ নিরপেক্ষ এবং অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের বিষয়টি চূড়ান্তভাবে স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন। একই দিনে তিনি গুলশানে বিএনপির পার্টি চেয়ারম্যানের অফিসে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল সহ কয়েকজন শির্ষস্থানীয় নেতার সাথে বৈঠক করেন তিনি বিএনপিকেও একই বার্তা দিয়েছেন বলে বৈঠক সূত্রে জানা গেছে।
এদিকে রোববার (২৩ জুলাই) নির্বাচন কমিশনে খোঁজ খবর নিয়ে জানা গেছে আগামী জাতীয় নির্বাচন নির্দিষ্ট সময়ের পূর্বে এগিয়ে নিয়ে আসার কোনো সুযোগই নেই। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন নির্বাচন কমিশনার জানিয়েছেন, আগামী জানুয়ারীর প্রথম দিকে (সম্ভবত ৮ই জানুয়ারী) নির্বাচনের সুনির্দিষ্ট তারিখ ধরে নির্বাচনী প্রস্তুতিমূলক কাজগুলো শুরু করেছে নির্বাচন কমিশন। অপরদিকে ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দলের শীর্ষ নেতৃবৃন্দের সাথে কথা বলে জানা গেছে, আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধু টানেলসহ ৭টি মেগা প্রকল্প সেপ্টেম্বরের মধ্যেই উদ্বোধন করবেন। তারপর একটি নির্দিষ্ট সময় হাতে রেখেই নির্বাচনী তফশিল ঘোষণা হতে পারে ।
আন্তর্জাতিক রাজনীতি এবং বিষয়াদী নিয়ে যারা চিন্তাভাবনা করেন তাদের মতে, অন্তর্ভুক্তিমূলক নির্বাচন নিয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের যেই চাপ রয়েছে, তা আমলে না নিলে সেটা বাড়াবাড়ির পর্যায় চলে যাবে। এতে করে বাইডেন প্রশাসন বিষয়টি নেতিবাচকভাবেই দেখবে। গত কয়েকদিনে বিএনপি’র কয়েকজন নেতৃস্থানীয় ব্যক্তির সাথে কথা বলে জানা গেছে, রাজনৈতিক কর্মসূচীগুলোতে আগের মতো পুলিশ বাড়াবাড়ি করছে না, কিংবা বাধা দিচ্ছে না । পুলিশ হেডকোয়ার্টার থেকে “অতি উৎসাহী” হয়ে কোনো জনস্বার্থ বিরোধী কোনো কর্মকাণ্ডে না জড়ানোর নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে ।
প্রশাসন ব্যবস্থার প্রাণকেন্দ্র সচিবালয়ে গত কয়েকদিন খোঁজ খবর নিয়ে জানা যায়, শীর্ষ আমলাদের মধ্যে নিরপেক্ষ মনোভঙ্গীর প্রকাশ ঘটেছে। তবে দীর্ঘদিন পদোন্নতি বঞ্চিত আমলারা সরকারের সমালোচনা করছেন প্রায়শই । এমনকি জনপ্রশাসনের ব্যাচ ভিত্তিক যেসব সংগঠন রয়েছে, সেই সংগঠনগুলোর পুনর্মিলনীতে প্রশাসন ও রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করতে দেখা গিয়েছে । তবে গত মে মাসে মার্কিন ভিসা নীতি ঘোষণার পর, যেসব আমলাদের সন্তানরা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রসহ ইউরোপে পড়ালেখা করছেন, তাদের মধ্যে চিন্তার ভাঁজ। কিন্তু কট্টর সরকারপন্থি এবং চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ পাওয়া কর্মকর্তারা বিরোধী দলের আন্দোলনকে আমলেই নিচ্ছেন না। ঢাকায় কর্মরত কয়েকজন বিদেশী কূটনীতিকের সাথে কথা বলে জানা গেছে, চলতি জুলাই মাস এবং আগস্ট মাস বাংলাদেশের রাজনীতির জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ । প্রধান বিরোধী দল বিএনপি’র সূত্রে জানা গেছে, আগামী ২৭ শে জুলাই, ঢাকার মহাসমাবেশে তারা নতুন কঠোর কর্মসূচী ঘোষণা দেবেন ।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।