একদিনে ১ লাখ গ্যাসের চুলা বিক্রি ওয়ালটনের


Published: 2019-11-20 00:49:43 BdST, Updated: 2021-08-06 06:33:06 BdST
বিজনেস ওয়াচ প্রতিবেদক:
বাজারে এলপিজি গ্যাস আসার পর শহরে-গ্রামে সর্বত্রই এখন রান্নাবান্নায় গ্যাসের চুলা ব্যবহার হচ্ছে। ফলে, সম্প্রতি সারাদেশে গ্যাসের চুলার চাহিদা ও বিক্রি বেড়েছে কয়েকগুণ। আর এই চাহিদার উল্লেখযোগ্য অংশ পূরণ করছে দেশের ইলেকট্রনিক্স, ইলেকট্রিক্যাল ও হোম অ্যাপ্লায়েন্সের শীর্ষ ব্র্যান্ড ওয়ালটন। তারা সাশ্রয়ী দামে উচ্চ গুণগতমান ও বৈচিত্র্যময় ডিজাইনের গ্যাসের চুলা বাজারে ছেড়েছে। চলতি মাসের ১৪ তারিখে এক দিনে এক লাখ ইউনিট গ্যাসের চুলা বা গ্যাস স্টোভ বিক্রি করেছে ওয়ালটন। সংশ্লিষ্টরা দাবি করছেন, এটি বাংলাদেশের বাজারের জন্য একটি রেকর্ড। ১ দিনে এতো গ্যাসের চুলা আর কখনো বিক্রি হয়নি।
গ্যাসের চুলা বিক্রির এই সাফল্য উদযাপনে মঙ্গলবার (১৫ অক্টোবর) রাজধানীতে ওয়ালটন করপোরেট অফিসে একটি কেক কাটা হয়। সে সময় উপস্থিত ছিলেন ওয়ালটনের নির্বাহী পরিচালক ইভা রেজওয়ানা, এমদাদুল হক সরকার, নজরুল ইসলাম সরকার ও মোহাম্মদ রায়হান, অপারেটিভ ডিরেক্টর রবিউল আলম ভূঁইয়া, ওয়ালটন হোম অ্যাপ্লায়েন্স বিভাগের চিফ অপারেটিং অফিসার (সিওও) আতিকুল ইসলাম, সেলস ও মার্কেটিং প্রধান মাশরুর হাসান ও প্রোডাক্ট ম্যানেজার জানেসার আলীসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা। ওয়ালটন হোম অ্যাপ্লায়েন্সের সিওও আতিকুল ইসলাম জানান, দামে সাশ্রয়ী, দেখতে সুন্দর, টেকসই ও রান্নায় গ্যাস খরচ কম হওয়ায় বাজারে গ্রাহক প্রিয়তা পাচ্ছে ওয়ালটন  গ্যাস বার্নার। বিক্রি হচ্ছে ব্যাপক। গত বছরের জানুয়ারী থেকে সেপ্টেম্বর মাসের তুলনায় চলতি বছরের একই সময়ে গ্যাসের চুলা বিক্রিতে প্রায় ১৮৫ শতাংশ প্রবৃদ্ধি হয়েছে ওয়ালটনের। বছরের প্রথম ৯ মাসেই পূরণ হয়ে গেছে গ্যাস বার্নার বিক্রির বার্ষিক লক্ষ্যমাত্রা। 
 
সূত্রমতে, কয়েক বছর আগেও ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জেলা শহরগুলোতে রান্নার কাজে শুধুমাত্র সরকারিভাবে সরবরাহকৃত ন্যাচারাল গ্যাস (এনজি) বা প্রাকৃতিক গ্যাস ব্যবহার হত। 
 
পরবর্তীতে, বিভিন্ন কোম্পানি বাজারে এনেছে এলপিজি গ্যাসের সিলিন্ডার। এর ইতিবাচক প্রভাব পড়েছে শহর ও গ্রামের দৈনন্দিন রান্নায়। মানুষের মাথাপিছু আয়ের পাশাপাশি জীবনযাত্রার মানও বৃদ্ধি পাওয়ায় প্রত্যন্ত গ্রামেও এখন ঝামেলাহীন রান্নার জন্য গৃহিণীদের পছন্দ এলপিজি (তরল) গ্যাস সিলিন্ডার। ফলে, দেশব্যাপী গ্যাসের চুলার চাহিদা ও বিক্রি কয়েকগুণ বেড়েছে। 
ওয়ালটন হোম অ্যাপ্লায়েন্সের সেলস ও মার্কেটিং প্রধান মাশরুর হাসান বলেন, চাহিদার সিংহভাগ পূরণের লক্ষ্যে ওয়ালটন বাজারে ছেড়েছে বৈচিত্র্যময় ডিজাইনের ৭০টিরও বেশি মডেলের সিঙ্গেল ও ডাবল বার্নারের গ্যাস বার্নার। সকল শ্রেণি, পেশার ক্রেতাদের অভ্যাস, রুচি ও চাহিদার ভিন্নতা অনুযায়ী ওয়ালটনের নিজস্ব কারখানায় এসব চুলা উৎপাদন করা হচ্ছে। সব মডেলেই রয়েছে এনজি এবং এলপিজি ভার্সন। এসবের দামও ক্রেতার সাধ্যের মধ্যে। আর তাই বাজারে গ্রাহক প্রিয়তার শীর্ষে ওয়ালটন গ্যাস বার্নার।   
ওয়ালটনের প্রকৌশলীরা জানান, স্টেইনলেস স্টিল দিয়ে তৈরি হচ্ছে চুলার সাইড প্যানেল এবং বডি। ফলে, ওয়ালটনের গ্যাসের চুলা অধিক লোড নিতে সক্ষম। এছাড়া পাউডার কোটেড ফ্রেম ব্যবহার করায় সহজে মরিচা পড়ে না। রয়েছে অটোমেটিক ইগনিশন সিস্টেম। অর্থাৎ গ্যাসলাইট বা ম্যাচের কাঠি ছাড়াই স্বয়ংক্রিয়ভাবে আগুন জ্বালানো যায়। কম গ্যাস খরচে তাড়াতাড়ি রান্না করতে গ্যাস স্টোভে ৯০ মিলি মিটার থেকে ১২০ মিলি মিটার সাইজের বার্নার ক্যাপ ব্যবহার করা হয়েছে। বার্নার ক্যাপের আয়তন যত বেশি হয়, তত বেশি তাপ উৎপন্ন করে। যেসব পরিবারে বেশি রান্নার প্রয়োজন, সেসব পরিবারের বড় আয়তনের বার্নার ক্যাপযুক্ত গ্যাস স্টোভ কেনার পরামর্শ দেন তারা।  
 
হোম অ্যাপ্লায়েন্সের প্রোডাক্ট ম্যানেজার জানেসার আলী জানান, বাজারে ওয়ালটনের রয়েছে এনজি ও এলপিজি ভার্সনের সিঙ্গেল বার্নার গ্যাস বার্নার। আছে গ্লাস টপ ও রেগ্যুলার ডিজাইনের মোট ১৪ টি মডেল। সিঙ্গেল বার্নার এসব গ্যাসের চুলার দাম পড়বে ১১’শ থেকে ২২’শ টাকা।সিঙ্গেল বার্নারের পাশাপাশি আছে রেগ্যুলার ও গ্লাস টপের ৫৬ মডেলের ডাবল বার্নারের চুলা। সব মডেলেই রয়েছে এনজি ও এলপিজি ভার্সন। এর মধ্যে এনজি ও এলপিজি ভার্সনের ১৬ টি রেগুল্যার মডেলের গ্যাসের চুলা আছে। এগুলো ২ হাজার থেকে ৩ হাজার ৫’শ টাকার মধ্যে পাওয়া যাবে। এ ছাড়া গ্লাস টপের মধ্যে এনজি ও এলপিজি ভার্সনের ৪০ মডেলের ডাবল বার্নারের চুলা মিলবে ৩ হাজার ১৫০ থেকে ৪ হাজার ৪’শ টাকায়। 
এদিকে অধিক নিরাপদ ও ৬৫ শতাংশ পর্যন্ত গ্যাস সাশ্রয়ী অত্যাধুনিক প্রযুক্তির নোব কন্ট্রোল ডাবল বার্নারের চুলা বাজারে ছেড়েছে ওয়ালটন। এসব চুলা গ্যাস হব নামেও পরিচিত । ওয়ালটনের এনজি ও এলপিজি ভার্সনের ৪ মডেলের গ্যাস হব ৭ হাজার থেকে ৭ হাজার ৫’শ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে। 
কর্তৃপক্ষ জানায়, গ্যাসের চুলার ইগনিটর এবং বার্নার সেটে ৬ মাসের রিপ্লেসমেন্ট ওয়ারেন্টি দিচ্ছে ওয়ালটন। রয়েছে তিন মাসের ফ্রি হোম সার্ভিস এবং এক বছরের ফ্রি বিক্রয়োত্তর সেবা। আইএসও সনদপ্রাপ্ত সার্ভিস ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের আওতায় সারা দেশে ৭৫টি সার্ভিস সেন্টারের মাধ্যমে গ্রাহকদের দ্রুত বিক্রয়োত্তর সেবা দিচ্ছে ওয়ালটন। 

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।