ইতিহাসে সর্বোচ্চ ৬ লাখ ৭৮ হাজার ৬৪ কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা


Published: 2022-06-10 09:49:54 BdST, Updated: 2022-06-27 03:05:03 BdST


নিজস্ব প্রতিবেদক:দেশের ইতিহাসে সর্বোচ্চ অংকের বাজেট দিলেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। ২০২২-২৩ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটের আকার ৬ লাখ ৭৮ হাজার ৬৪ কোটি টাকা– যা জিডিপির ১৫ দশমিক ২ শতাংশ। ঘাটতিও সর্বোচ্চ; পরিমাণ ২ লাখ ৪৫ হাজার ৬৪ কোটি টাকা, যা জিডিপির সাড়ে ৫ শতাংশ। ঘাটতি পূরণে, বিদেশী ঋণ ও সহায়তা আনা হবে সাড়ে ৯৫ হাজার কোটি টাকা এবং অভ্যন্তরীণ ঋণ ১ লাখ ৪৬ হাজার ৩৩৫ কোটি টাকা। বাজেটে মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ, কৃষি, স্বাস্থ্য, মানবসম্পদ, কর্মসংস্থান ও শিক্ষাসহ বেশকিছু খাত সর্বাধিক গুরুত্ব পেয়েছে।

করোনা মহামারীর খাঁড়ায় গেলো দুই বছর অনাড়ম্বর আয়োজন থাকলেও, এবার কিছুটা রঙ ফিরেছে জাতীয় সংসদে বাজেট উপস্থাপনায়। সদস্যদের সরব উপস্থিতিতে সংসদ হয়ে উঠেছে উৎসবমূখর।

স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে বৃহস্পতিার (৯জুন) টানা চতুর্থ বারের মতো ২০২২-২৩ অর্থ বছরের বাজেট উপস্থাপন করেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামাল।

কোভিডের অভিঘাত পেরিয়ে উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় প্রত্যাবর্তন’ শিরোনামে এবারের বাজেট ছিল স্বাধীনতা পরবর্তী বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় বাজেট।

বাজেটে ব্যয় বাড়লেও বাড়েনি তেমন আয়। তাই ঘাটতিও বেড়েছে বড় আকারেই। এদিকে, ব্যয়ের হিসাবে বাজেট বাড়লেও জিডিপির বিবেচনায় বাজেটের আকার এবার কমছে ২ শতাংশ। জিডিপি প্রবৃদ্ধির লক্ষ্য ধরা হচ্ছে সাড়ে ৭ শতাংশ আর মূল্যস্ফীতি বেঁধে রাখার ইচ্ছে ৫ দশমিক ৬ শতাংশে।

মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে বাজেটে প্রণোদনা ও ভর্তুকিতে বরাদ্দ থাকছে ৮৩ হাজার কোটি টাকা, যা যাবে কৃষি, বিদ্যুৎ ও জ্বালানিসহ বেশকিছু খাতে।

আগামী বাজেটে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে বরাদ্দ থাকছে ২ লাখ ৪৬ হাজার ৬৬ কোটি টাকা। এর মধ্যে সর্বোচ্চ বরাদ্দ প্রাপ্ত খাত পরিবহন ও যোগাযোগ। অন্যদিকে বাজেটে অনুন্নয়ন খাতে ব্যয় ধরা হচ্ছে চার লাখ ৩২ হাজার কোটি টাকা । যা মোট বাজেট বরাদ্দের ৬৪ শতাংশ।দেশের প্রান্তিক জনগোষ্ঠীকে অগ্রাধিকার দিয়ে প্রস্তাবিত বাজেট জনজীবনে স্বস্তি ফেরাবে বলে প্রত্যাশা অর্থমন্ত্রীর। এর আগে, জাতীয় সংসদ ভবনের কেবিনেট কক্ষে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার বিশেষ বৈঠকে প্রস্তাবিত বাজেট পাস হয়। এরপর রাষ্ট্রপতি মো. আব্দুল হামিদের স্বাক্ষরের পর তা সংসদে উপস্থাপন করেন অর্থমন্ত্রী আহম মুস্তফা কামাল।

 

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।