শনিবার, ১৩ জুলাই, ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১

প্যানেল পরিচিতি সভায় এফবিসিসিআইর সাবেক সভাপতিরাট্রিলিয়ন ডলারের অর্থনীতির লক্ষ্য অর্জনে ব্যবসায়ি ঐক্য পরিষদের প্রার্থীদের পূর্ণাঙ্গ প্যানেলে বিজয়ী করুন


Published: 2023-07-16 19:03:29 BdST, Updated: 2024-07-13 06:38:24 BdST

 নিজস্ব প্রতিবেদক:  ট্রিলিয়ন ডলারের অর্থনীতির লক্ষ্য অর্জনে ব্যবসায়ি ঐক্য পরিষদের প্রার্থীদের পূর্ণাঙ্গ প্যাণেলে বিজয়ী করার আহ্বান জানিয়েছেন দেশের শীর্ষস্থানীয় ব্যবসায়ি নেতারা। তারা বলেছেন, অর্থনৈতিকভাবে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। শিগগিরই বাংলাদেশ ট্রিলিয়ন ডলারের অর্থনীতির দেশ হবে। এখানে ব্যবসায়ীদের অবদান থাকবে সবচেয়ে বেশি। যেহেতু ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি (এফবিসিসিআই) ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন তাই স্মার্ট এফবিসিসিআই গড়তে ঐক্যের বিকল্প নাই। আমরা মনে করি মাহবুবুল আলম একজন যোগ্য, দক্ষ ব্যক্তি যাকে আমরা সিলেক্ট করেছি। আশা করি তিনি পরবর্তী দুই বছর এফবিসিসিআইকে নেতৃত্ব দিবেন এবং এফবিসিসিআইকে স্মার্ট একটি প্রতিষ্ঠান হিসাবে দাঁড় করাবেন। এজন্য আমাদের এক্যের নেতৃত্বের বিকল্প নাই। তাই আশা করছি ব্যবসায়ি ঐক্য পরিষদের সবাইকে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করতে হবে। তাহলেই স্মার্ট বাংলাদেশ গঠন হবে।

 শুক্রবার রাতে রাজধানীর ইন্টারকন্টিনেন্টাল হোটেল  এফবিসিসিআই আসন্ন নির্বাচনে ব্যবসায়ি ঐক্য পরিষদের এসোসিয়েশন গ্রুপের প্যানেল পরিচিতি সভায় এসব কথা বলেন ব্যবসায়ী নেতারা। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন বিসিসিআইয়ের পরিচালক আবু নাসের ও সভাপতিত্ব করেন হামীম গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও এফবিসিসিআইয়ের সাবেক সভাপতি এ কে আজাদ।

অনুষ্ঠানে বর্তমান এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন বলেন, আজ আমরা এফবিসিসিআইয়ের আগামীর সভাপতি মাহবুবুল আলম ও অন্যান্য ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দকে নিয়ে এক মঞ্চে দাঁড়িয়েছি। এরূপ সব স্থানেই হওয়া উচিত। সকল ভেদাভেদ ভুলে এখন ঐক্যের বিকল্প নাই। তিনি আরো বলেন, রাশিয়া ও ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে পৃথিবীর অর্থনীতি খারাপ অবস্থানে রয়েছে। আমরা বিশ্বের এ অবস্থার বাইরে নই। সরকারের বিভিন্ন ইতিবাচক উদ্যোগের কারণে আমরা ভালো অবস্থানে আছি। যাই হোক বাংলাদেশের অর্থনীতির প্রায় ৮২% বেসরকারি খাতের অবদান। এফবিসিসিআই তার নেতৃত্ব দিচ্ছে। জসিম বলেন, ২০২৬ সালের মধ্যে এলডিসি গ্র্যাজুয়েশন ২০৩০ সালের মধ্যে এসডিজি অর্জন এবং ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত বাংলাদেশ বিনির্মানে ব্যবসায়ীদেরকেই এগিয়ে আসতে হবে। এগুলো অর্জনে আমাদের বিভিন্ন  চ্যালেঞ্জ আসবে যা আমাদেরই মোকাবেলা করতে হবে। ব্যবসায়ীদের সমস্যা ব্যবসায়ীদেরই সমাধান করতে হবে।

ামরা বিজনেস সামিট করেছি ৩০০ এর মদো বিদেশি প্রতিনিধি এসেছেন।  সিএনএন এর সাথে বাংলাদেশ ব্র্যান্ডিং চুক্তি করেছি। নতুন বাংলাদেশের সক্ষমতা বিশ্বে তুলে ধরতে  আমাদেরই এগিয়ে আসতে হবে, জসীম মন্তব্য করেন।তিনি বলেন, ভিয়েতনাম ২৫০ বিলিয়ন ডলার এক্সপোর্ট করতে পারলে রপ্তানিতে আমরা অনেকে পিছিয়ে। এফবিসিসিআই তে দক্ষ নেতৃত্বের জন্য মুহবুবুল  আলমের প্যানেলকে  ভোট দিয়ে বিজয়ী করে তার হাতকে শক্তিশালী করবেন। কোন ইমোশন হয়ে অন্যত্র যাবেন না। ব্যবসায়ী ঐক্য পরিষদ প্যানেল লিডার মাহবুবুল আলম জিবি মেম্বারসহ সকল ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দকে স্যালুট ও অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, , ২০৪১ সালে ট্রিলিয়ন ডলারের অর্থনীতির দেশ হবে এখানে বেসরকারি খাতের অবদান আমাদের ধরে রাখতে হবে। এক সাথে কাজ করতে হবে। আমাদের ঐক্য পরিষদের পূর্ণ প্যানেলকে ভোট দিয়ে আপনারা জয় যুক্ত করবেন। কারণ এ প্যানেল নবীণ ও প্রবীণের সমন্বয়ে গঠন করা হয়েছে। "আগামীতে ট্রিলিয়ন ডলারের অর্থনীতি আমাদেরই নেতৃত্ব দিতে হবে। আমরা বিজয়ী হলে এফবিসিসিআইর সচিবালয়কে আরো শক্তিশালী করব। বিভাগীয় শহরগুলোতে ব্যবসা ও গবেষণার সৃষ্টির পাশাপাশি জেলা চেম্বার গুলোকে অনলাইনে যুক্ত করে স্মার্ট এফবিসিসিআই গড়ে তুলবো। তাছাড়া ব্যবসায়ী বান্ধব করব পলিসি করাবো।  তিনি আরো বলেন, এসএমই সেক্টরের অবদান জাপান কোরিয়াতে অনেক বেশি কিন্তু সেখানে আমরা অনেক পিছিয়ে আছি। এসএমই খাতের উন্নয়নের জন্য আমাদের আরো কাজ করতে হবে। নির্বাচিত হলে, ২০২৪ সালে আমরা বড় একটি সামিট আয়োজন করব আর বিশ্ব ব্যাপী বাংলাদেশকে তুলরে ধরব।  এখন ইজ অফ ডুইং বিজনেস বা ব্যবসায় সহজীকরণ আমরা যথাযথভাবে পাইনা তাই ব্যবসায়ী পরিবেশ সহজ করার জন্য আমাদের ঐক্যের বিকল্প নাই।  মাহবুবুল বলেন, সালমান এফ রহমানসহ শীর্ষ নেতৃবৃন্দ যে প্যানেল সিলেক্ট করেছেন আপনারা তাদের ভোট দিয়ে স্মার্ট ব্যবসা, স্মার্ট সোসাইটি, ও স্মার্ট বাংলাদেশ  গড়ার সুযোগ করে দিবেন।" উক্ত অনুষ্ঠানে এফবিসিসিআইয়ের সাবেক সভাপতি মাতলুব আহমেদ বলেন ঐক্য পরিষদের জয় হবেই। আপনারা প্যানেলকে ভোট দিন।  চট্টগ্রাম চেম্বারের সভাপতি মাহবুবুল আলমের সাথে আমি দীর্ঘদিন কাজ করেছি। তিনি খুবই সুচিন্তিত সিদ্ধান্ত দেন। এফবিসিসিআইকে এগিয়ে নিতে তাকে খুব প্রয়োজন। এফবিসিসিআইয়ের সাবেক সভাপতি মীর নাসির হোসাইন বলেন ১৭-১৮ বছর আগে আমি সভাপতি ছিলাম। ১৯৮৪ সালে আমি পরিচালক হয়েছিলাম। তিলে তিলে আমরা এফবিসিসিআইকে গড়ে তুলেছি এই এফবিসিসিআইকে আরও শক্তিশালী করতে মাহবুবুল আলমের প্যানেলকে জয় যুক্ত করুন। বিজিএমইএ সভাপতি ফারুক হসান  ব্যবসাইয় ঐক্য পরিষদকে সমর্থ দিয়ে বলেন,  ২০২৪ সাল হবে আমাদের জন্য চ্যালেঞ্জিং বছর।  আমরা ট্রিলিয়ন ডলারের অর্থনীতির স্বপ্ন দেখছি। আগামী বছর আমাদের এলডিসি গ্রাজুয়েশন হবে। তখন আমরা জিএসপি সুবিধা থেকে বঞ্চিত হতে পারি। তাই আমাদের জিএসপি প্লাস সুবিধা দরকার। ২০৪১ সালের স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে ও দেশের অর্থনীতিকে আরো এগিয়ে নিতে মাহবুবুল আলমের প্যানেলকে সবাই বিজয়ী করবেন।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।