শনিবার, ১৩ জুলাই, ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১

নয়া দিল্লীতে কঠোর নিরাপত্তাজি২০ সম্মেলন কি গুরুত্ব হারাচ্ছে? হাসিনা– মোদি বৈঠক ৮ই সেপ্টেম্বর


Published: 2023-09-07 18:21:33 BdST, Updated: 2024-07-13 06:49:05 BdST

কুদরাত-ই-খোদা

চলতি মাসের ৯ – ১০ তারিখে ভারতের নয়া দিল্লীতে বসতে যাচ্ছে বিশ্বের শিল্পোন্নত ও বিকাশমান অর্থনীতির শীর্ষ ২০ দেশের জোট জি ২০’এর সম্মেলন । এই উদ্দেশ্যে নয়া দিল্লীতে চলছে ব্যাপক কর্মযজ্ঞ। সৌন্দর্যবর্ধন থেকে শুরু করে, পুরো শহরকে ঢেকে ফেলা হয়েছে নিরাপত্তার চাদরে । সম্মলনের ২ দিন দিল্লীতে নিরাপত্তার জন্য মোতায়েন থাকবে ১,৩০,০০০ নিরাপত্তা কর্মী । থাকছে এন্টি-ড্রোন নিরাপত্তা ব্যবস্থাও । তাছাড়া সম্মেলনের সময়কালে পুরো দিল্লীকে কার্যত দেশ থেকে বিচ্ছিন্ন করে ফেলা হবে । দিল্লীর যানজটের কথা চিন্তা করে, ৮ – ১০ তারিখ সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে শহরে। বন্ধ থাকবে সকল সরকারী এবং বেসরকারি স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় । তাছাড়াও ব্যাংক থেকে শূরু করে অন্যান্য বেসরকারি প্রতিষ্ঠানেরও বন্ধ থাকার কথা রয়েছে । দিল্লীতে সম্মলনের সময়কালে হাজার খানেক বিদেশী অতিথীর অবস্থানের কথা রয়েছে । তাদের যাতায়াতের সুবিদার্থেই সরকারের এই সিদ্ধান্ত ।
উল্লেখ্য, এবারের জি২০ সম্মেলনের সভাপতিত্ব করছে ভারত । ভারতের ইতিহাসে এবারই প্রথমবারের মতো এতো জন বিশ্বনেতার এক সঙ্গে সমাগম ঘটতে যাচ্ছে দেশটির রাজধানীতে । বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এবারের জি২০ সম্মেলনের মধ্য দিয়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী পুরো বিশ্বের সামনে ভারতের ক্রমবর্ধমান ভূ-রাজনৈতিক ক্ষমতার একটি বহিঃপ্রকাশ দেখাতে চান । মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের ৭ ই সেপ্টেম্বরে নয়া দিল্লী পৌছানোর কথা । তাছাড়াও সম্মেলনে আরো থাকছেন ব্রিটিশ প্রধান মন্ত্রী রিশি সুনাক, কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো, তুরস্কের রাষ্ট্রপতি রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান, ফ্রান্সের রাষ্ট্রপতি ইমানুয়েল ম্যাক্রো, সৌদি আরবের যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান । আরো থাকবেন থাকবেন ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা, জার্মানি, অস্ট্রেলিয়া, ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন, জা[পান, দক্ষিণ কোরিয়া, মেক্সিকো, ইটালি, ইন্দোনেশিয়ার সরকার ও রাষ্ট্রপ্রধানেরা । তবে সম্মেলনে আসছেন না রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট পুতিন । তার জায়গায় রাশিয়ার প্রতিনিধি দলকে নেতৃত্ব দেবেন দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রী সার্গেই লেভরভ । তাছাড়াও সম্মেলনের একদম আগ মূহুর্তে এসে জানা যাচ্ছে সম্মেলনে চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিং পিং অংশগ্রহণ নাও করতে পারেন । চীনের পররাষ্ট্র দপ্তর শি জিং পিংয়ের অংশগ্রহণের ব্যাপারটি নাকচ না করলেও জানিয়েছেন চীনের প্রধানমন্ত্রী লি কিয়াং জি২০ সম্মেলনে অংশগ্রহণ করবেন । এর থেকে কার্যত পরিষ্কার হয়ে যাচ্ছে শি জিং পিং ভারতে আসছেন না ।
বর্তমান বিশ্বব্যাপী ভূ-রাজনৈতিক পরিস্থিতির পরিপ্রেক্ষিতে রাশিয়া ও চীনের রাষ্ট্রপ্রধানের সম্মেলনে অংশগ্রহণ না করা সম্মেলনের সফলতার ক্ষেত্রে একটি বড় ধাক্কা । বর্তমান বৈশ্বিক রাজনীতিতে ভিন্ন মতাদর্শের ভিন্ন মেরুর বেশ কয়েকটি দেশকে এক টেবিলে আনতে এত বছর ধরে সক্ষম হয়েছে জি২০ । তবে রাশিয়ে ও চীনের মতো ক্ষমতাধর দুটি দেশের রাষ্ট্রপ্রধানের সম্মেলনটিতে অংশগ্রহণ না করা জোটটির কার্যকারিতা ও ভবিষ্যতে সফলতার ক্ষেত্রে বড় বাধা হয়ে দাড়াতে পারে । অনেক বিশেষজ্ঞ আবার এটাও মনে করছেন, ‘নিউ ওয়ার্ল্ড অর্ডার’ খ্যাত ব্রিক্সের বৈশ্বিক গুরুত্ব আরো পাকাপোক্ত করার লক্ষ্যেও পুতিন ও শি জি২০’কে এড়িয়ে চলতে পারেন । উল্লেখ্য, এবারকার সম্মেলনে অন্যতম প্রধান আলোচ্য বিষয় খাদ্য ও জ্বালানী ক্ষেত্রে ভূ – রাজনৈতিক প্রভাব । তবে রাশিয়া – ইউক্রেইন যুদ্ধ নিয়ে জোটের ভিতরের দেশগোলোর মধ্যেই মতভেদ থাকার কারণে এই গুরুত্বপূর্ণ বৈশ্বিক ইস্যুতেও কোনো সিদ্ধান্তে পৌছানোর সম্ভাবনা ক্ষীণ ।
জোট ভিত্তিক দেশগুলো বাদেও, সম্মেলনে আরো আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে জোটের বাইরের ৯ টি দেশের সরকার – রাষ্ট্রপ্রধানকে । এর মধ্যে বাংলাদেশও রয়েছে । প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও নয়া দিল্লীতে জি২০’তে অংশগ্রহণ করবেন । সেই ক্ষেত্রে মার্কিন ভিসা নিষেধাজ্ঞা ঘোষণার পর এবারই প্রথম একই প্লেটফর্মে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ও পশ্চিমা নেতৃত্বের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মুখোমুখী হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে । তাছাড়াও সম্মেলন শুরুর আগের দিন ৮ই সেপ্টেম্বর হাসিনা – মোদির বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে । এতে তিস্তা চুক্তি সহ নির্বাচন সংশ্লিষ্ট বিষয়গুলো গুরুত্ব পাবে বলে ঢাকায় কূটনীতিকরা জানিয়েছেন । অনেকেই মনে করছেন, আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে নয়া দিল্লীর জি২০ সম্মেলন বাংলাদেশের জন্যও ভূ-রাজনৈতিক প্রেক্ষিতে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ।
লেখক: প্রধান সম্পাদক, বিজনেস ওয়াচ।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।